মেসিকে ছাড়াই জয় অব্যাহত আর্জেন্টিনার

argentinaনিজস্ব প্রতিবেদক: যুক্তরাষ্ট্রের দর্শকরা আবারও হতাশ হলেন। নিউ সার্জিতে মেটলিংক স্টেডিয়ামে দর্শকরা এসেছিল লিওনেল মেসির খেলা দেখতে। কিন্তু ইনজুরির কারনে মঙ্গলবার রাতেও মাঠে নামতে পারলেন না তিনি। তবে হতাশ হয়নি আর্জেন্টিনার সমর্থকরা। মেসি না থাকলেও ইকুয়েডরকে ২-১ গোলে হারিয়েছে আর্জেন্টাইনরা।

স্প্যানিশ লা লিগায় এল ক্ল্যাসিকোয় রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে ম্যাচের দিনই পায়ে আঘাত পেয়েছিলেন মেসি। যে কারণে দলের সাথে থাকলেও ওয়াশিংটনে এল সালভাদরের বিপক্ষে ম্যাচেও মাঠে নামতে পারেননি বার্সেলোনা তারকা।

মেসি অনুপস্থিত। সুতরাং নিজেকে চেনানোর দারুন সুযোগ। এ সুযোগটা হাতছাড়া করলেন না হ্যাভিয়ের পাস্তোরে। মূলতঃ পিএসজির এই তারকার গোলেই ইকুয়েডর জয় হলো লা আলবিসেলেস্তেদের। জাতীয় দলের হয়ে এটাই পাস্তোরের প্রথম গোল। শুধু নিজে গোলই করেননি, অপর গোলেও ছিল তার বড় অবদান।

এল সালভাদরের বিপক্ষে যে দল খেলিয়েছিলেন কোচ মার্টিনো, ইকুয়েডরের বিপক্ষে সেই দলে ব্যাপক পরিবর্তন। অন্তত ১০টি পরিবর্তন আনেন তিনি। অপরদিকে আন্তোনিও ভ্যালেন্সিয়া, আরতুরো মিনা এবং জেফারসন মন্তেরোকে বাদ দিয়ে একাদশ সাজান ইকুয়েডর কোচ।

খেলার ৮ম মিনিটেই গোলের সূচনা করেন আরেক আর্জেন্টাইন তারকা স্ট্রাইকার সার্জিও আগুয়েরো। অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়ার কর্নার কিক থেকে ভেসে আসা বলে হেড করে পাস্তোরে বল দেন আগুয়েরোকে। ৬ গজ দুর থেকে সেই বলকেই হেড করে ইকুয়েডরের জালে জড়ান আগুয়েরো।

তবে বেশিক্ষণ লাগেনি ইকুয়েডরের গোলটি শোধ করতে। ২৪ মিনিটে মিলার বোলানোসের গোলে সমতায় ফেরে ইকুয়েডর। ওয়াল্টার আইয়োভার পাস থেকে বল পেয়ে ডান পায়ের দুর্দান্ত এক শট নেন মিলার।

১-১ সমতায় শেষ হয় প্রথমার্ধের খেলা। দ্বিতীয়ার্ধ শুরুর ১৩ মিনিট পর আর্জেন্টিনার হয়ে জয়সূচক গোলটি করেন হ্যাভিয়ের পাস্তোরে। লুকাস বিগলিয়ার পাস থেকে বক্সের মাঝ অংশ থেকে ডান পায়ের দুর্দান্ত এক শটে গোলটি করেন পাস্তোরে।