দুরন্ত জয়ে কেকেআরের শুভ সূচনা

মুম্বাই: ১৬৮/৩, ২০ ওভার (রোহিত ৯৮, মরকেল ২-১৮)। কলকাতা: ১৭০/৩, ১৮.৩ ওভার (গম্ভীর ৫৭, সুরাইয়া কুমার ৪৬*)। ফল: ৯ বল বাকি থাকতে ৭ উইকেটে জয়ী নাইটরাইডার্স

210177নিজস্ব প্রতিবেদক: ইডেন গার্ডেনে উদ্বোধনী ম্যাচে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সকে ৭ উইকেটে হারিয়ে দুরন্ত সূচনা করলো সাকিব আল হাসানের দল বর্তমান চ্যাম্পিয়ন কলকাতা নাইট রাইডার্স (কেকেআর)। আইপিএল এইটে নাইটদের শুভসূচনা এর থেকে আর কিই বা হতে পারত! মুম্বাইয়ের রঞ্জি দলের অন্যতম সদস্য তথা সাবেক মুম্বই ইন্ডিয়ান্স সুরাইয়াকুমার যাদবের ব্যাটেই জয়গাঁথা রচনা করল নাইটব্রিগেড।

রান তাড়া করে সুরাইয়াকুমারের ২০ বলে অপরাজিত ৪৬ রানের ইনিংসে ভর করে মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে সহজ জয় ছিনিয়ে নিল কলকাতা। পাঁচটি ছক্কা এবং একটি বাউন্ডারি। স্ট্রাইকরেট ২৩০। রান তাড়া করতে গিয়ে একবারের জন্যও সমস্যায় পড়তে হয়নি নাইটদের। ইডেনের স্লো-উইকেটে ১৬৯ রান তাড়াা করা খুব একটা সহজ ছিল না। তার পর শুরুতেই রবিন উথাপ্পার উইকেট হারানোর পর।

গত আইপিএল ফাইনালে মানীষ পাণ্ডে যেখানে শেষ করেছিলেন বুধবার সেখান থেকেই যেন শুরু করলেন। ২৪ বলে তিনটি ছয় ও দু’টি চারের সাহায্যে ৪০ রান করে হরভজন সিংয়ের বলে ডাগ-আউটে ফেলেন পাণ্ডে।

আবার প্রথম ম্যাচেই রানের মুখ দেখলেন নাইট অধিনায়ক গৌতম গম্ভীর। ৪৩ বলে ৫৭ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। ]দ্বিতীয় ওভারে বিনয় কুমারারের ডেলিভারি কভার ড্রাইভ করতে গিয়ে ব্যাট দু’টুকরো হয়ে যায় গম্ভীরের ব্যাট। নতুন ব্যাট নিয়ে মুম্বাই স্পিনারদের বিরুদ্ধে আক্রমণ চালান নাইট দলনেতা। দ্বিতীয় উইকেটে গম্ভীর-পাণ্ডের ৮৫ রানের জুটি কেকেআরের জয়ের ভিত তৈরি করে দেয়।

পরে সুরাইয়াকুমারে ব্যাট নাইটদের জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে দেয়। বল হাতে চার ওভারে ১৮ রান খরচ করে মুম্বাইয়ের দুই উইকেট নিয়ে মরনে মরকেল ম্যাচের সেরা হন।

210191বুধবার টস জিতে মুম্বাইকে প্রথমে ব্যাট করতে পাঠান কেকেআর অধিনায়ক গম্ভীর। শুরুতেই তিন উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে শুরু করে মুম্বাই। এরপর তাদের ইনিংস টেনে তোলার দায়িত্ব নেন অধিনায়ক রোহিত শর্মা এবং কোরি অ্যান্ডারসন জুটি। সপ্তম ওভারে মাত্র ৩৭ রানে তিন উইকেট হারানোর পর চতুর্থ উইকেটে ১৩১ রান যোগ করেন রোহিত ও অ্যান্ডারসন।

সেঞ্চুরি থেকে মাত্র দু’রান দূরে থেমে যেতে হল রোহিতকে। ৬৫ বলে ১২টি চার ও চারটি ছক্কার সাহায্যে ৯৮ রানে অপরাজিত থাকেন রোহিত। আর ৪১ বলে চারটি চার ও তিনটি ছক্কায় ৫৫ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন অ্যান্ডারসন।