ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগ

আবাহনী চ্যাম্পিয়ন

abAHani

ওয়াল্টন ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে আবাহনী লিমিটেড।

আজ (বুধবর) শেষ রাউন্ডের ম্যাচে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবকে ১১৫ রানে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হওয়াটা প্রায় নিশ্চিতই করে ফেলে আবাহনী। এই জয়ের পর একটাই যদি-কিন্তু ছিল। অমিমাংসিত থাকা গত ১২ জুনের আবাহনী ও প্রাইম দোলেশ্বরের মধ্যকার ম্যাচের পরিণতি কী হয় সেটাই ছিল দেখার।

আজ সন্ধ্যায় ওই ম্যাচের রায় দিয়ে দিয়েছে বিসিবির বিশেষ তদন্ত কমিটি। ম্যাচটাকে পরিত্যক্ত ঘোষণা করে উভয় দলকেই দেওয়া হয়েছে এক পয়েন্ট করে। যার অর্থ, ১৬ ম্যাচে ২৩ পয়েন্ট নিয়ে আবাহনী চ্যাম্পিয়ন। এ নিয়ে লিগে ১৮ বার চ্যাম্পিয়ন হলো আবাহনী। ২১ পয়েন্ট নিয়ে  প্রাইম দোলেশ্বর রানার্সআপ হলো টানা দ্বিতীয় বার।

শুধু পয়েন্ট ভাগাভাগিই নয়, বিতর্কিত ওই ম্যাচের আম্পায়ারের সঙ্গে অখেলোয়াড়ী সূলভ আচরণ করার দায়ে আবাহনী অধিনায়ক তামিম ইকবালকে এক লক্ষ টাকা জরিমানা ও ঘরোয়া ক্রিকেটে এক ম্যাচ নিষিদ্ধ করেছে বিশেষ তদন্ত কমিটি। পাশাপাশি প্রাইম দোলেশ্বরের অধিনায়ক নাসির হোসেনকে জরিমানা করা হয়েছে ২০ টাকা। বিস্ময়কর ব্যাপার হলো, তামিমকে নিষিদ্ধ করার ঘোষণা এল লিগ শেষ হওয়ার পর!

একদিন আগেও যদি নিষিদ্ধ করার ঘোষণাটি আসত, তাহলে আজ শেষ ম্যাচে খেলতে পারতেন না তামিম। সেক্ষেত্রে প্রাইম ব্যাংকের সঙ্গে আবাহনীর আজকের ম্যাচের ফলটা অন্য রকমও হতে পারত। কারণ, মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে প্রাইম ব্যাংকের বিপক্ষে আবাহনীর ১১৫ রানের জয়ের নায়ক তামিমই। আবাহনী অধিনায়ক খেলেছেন ১৩২ বলে ১৪২ রানের অনবদ্য এক ইনিংস। এবারের প্রিমিয়ার লিগেই যেটি ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানের ইনিংস। তামিমের ওই ইনিংসের পাশাপাশি মোসাদ্দেক হোসেনের ৭৪ বলে ৭৮ রানের ইনিংসে চড়ে আবাহনী ৭ উইকেটে গড়ে ৩১৬ রানের নিরাপদ পুঁজি। জবাবে সাকলাইন সজিবের ঘুর্ণির ফাদে পড়ে মাত্র ২০১ রানেই গুড়িয়ে যায় প্রাইম ব্যাংকের ইনিংস। তামিম যেমন ব্যাট হাতে এবারের লিগের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানের ইনিংস খেলেছেন, সাকলাইনও করেছেন এবারের লিগে ব্যক্তিগত সেরা বোলিংয়ের কীর্তি। সাকলাইন ৯.২ ওভার বোলিং করে ৫৮ রান খরচায় নিয়েছেন ৭ উইকেট। এবারের লিগে এক ম্যাচে ৭ উইকেট পাননি আর কেউই। তবে সাকলাইন নন, দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলে আবাহনীকে রানের পাহাড়ে নিয়ে যাওয়ার সুবাদে ম্যাচসেরার পুরস্কারটি পেয়েছেন তামিমই।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

আবাহনী : ৫০ ওভারে ৩১৬/৭ (তামিম ১৪২, লিটন ০, নাজমুল ১৭, কার্তিক ২৫, মোসাদ্দেক ৭৮, সাকিব ১২, আবুল হাসান ২৬, অভিষেক ৫*, সাকলাইন ০*; উন্মুখ চাঁদ ৫৯/৩, নাজমুল ৪৮/২, রুবেল ৬৯/২)।

প্রাইম ব্যাংক : ৩৭.২ ওভারে ২০১  (মেহেদি ৬৯, চাঁদ ২৩, রনি ১৩, নুরুল ৯, সাব্বির ১২, তাইবুর ০, শুভাগত ৫১, রায়হান ৯, রুবেল ০, মনির ০*, নাজমুল রিটায়ার্ডহার্ট-; সাকলাইন ৫৮/৭, তাসকিন ৪৫/২)।

ফল : আবাহনী ১১৫ রানে জয়ী

ম্যান অব দ্য ম্যাচ : তামিম ইকবাল (আবাহনী)

 

 

Rent for add