প্রিমিয়ার লিগ হকি

মেরিনার্সের স্বপ্ন পূরণ

merinersদুই বার রানার্সআপ হলেও এর আগে প্রিমিয়ার হকির শিরোপা কখানোই ঘরে তোলা হয়নি মেরিনার ইয়াংস ক্লাবের। এবারের লিগে সেই দলটি  শুরু থেকে ছিল দুর্বার। ঘরোয়া হকির তিন পরাশক্তি মোহামেডান, আবাহনী, ঊষাকে পিছনে ফেলে তারাই হাসলো শেষ হাসি। মওলানা ভাসানী হকি স্টেডিয়ামে লিগের শেষ ম্যাচে ঊষা ক্রীড়া চক্রকে ৩-২ গোলে হারিয়ে শিরোপা জিতলো মেরিনার ইয়াংস। প্রিমিয়ার হকি তাঁর আঠারো বছরের ইতিহাসে পেল নতুন চ্যাম্পিয়নকে।

ড্র হলেই স্বপ্ন পূরণ মেরিনার্সের আর ঊষার চাই জয়। এমন সমীকণের নিয়ে খেলতে নেমে শুরুতে ২ গোলে পিছিয়ে পড়ে মেরিনার্স। ১৩ মিনিটে হাসান জোবায়ের নিলয় আর ১৫ মিনিটে পুস্কর খীসা মিমো এগিয়ে দেন ঊষাকে। কিন্তু পরে কি দারুন ভাবেই না ম্যাচে ফিরো এলো আরশাদ-ইসতিয়াকরা। ঊষাকে নিলয় ও মিমোর এনে দেওয়া লিড মূল্যহীন করে নায়ক বনে গেলেন মেরিনার্সের তিন গোল দাতা- ওয়াকাস শরিফ, আরশাদ ও ইশতিয়াক।

অথচ নায়ক হতে পারতেন আসলে মিমো-নিয়লরাই। প্রথম ২০ মিনিট প্রতিপক্ষকে যেভাবে চেপে ধরেছিলেন তাঁরা, তাতে মনে হচ্ছিল বড় হার দিয়েই বুঝি লিগ শেষ করতে হবে মেরিনার্সকে। কিন্তু মাঠে সব চিত্র পাল্টে গেল ২০ মিনিটের মাথায়। ম্যাচে ঊষা তখন ২-০ গোলে এগিয়ে। ঊষার নিলয় মেরিনার্সের ইশতিয়াককে ফাউল করলে আম্পায়ারের সাথে বাদানুবাদে জড়িয়ে যান দলটির (মেরিনার্স) পাকিস্তানি ফরোয়ার্ড তৌসিফ। তাকে সবুজ কার্ড দেখিয়ে মাঠের বাইরে পাঠিয়ে দিলে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে মেরিনার্স সমর্থরকা। প্রথমে গ্যারালির চেয়ার ভেঙ্গে তা মাঠে ছুঁড়ে মারা। পরে ভিআইপি বক্সের ভেতর সামনের কাঁচ, চেয়ার, সোফা ভেঙ্গে লঙ্কাকান্ড বাঁধিয়ে ফেলে। এসময় খেলা দেখতে আসা  মোহামেডানের এক কর্মকর্তাকে লাঞ্চিত করেন মেরিনার্সে এক কর্মকর্তা। এ সময় ফেডারেশন সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সাদেকও সেখানে বসে খেলা দেখছিলেন। এ ঘটনায় খেলা ২০ মিনিট বন্ধ ছিল।

meriners.jpg-1.jpg-2এরপর খেলা শুরু হলে পাল্টে যায় মাঠের চিত্র। উষা প্রথম ২০ মিনিট যে ধারায় খেলতে ছিল তা থেকে পুরোপুরি সরে আসে। সুযোগে চড়াও হয়ে খেলতে থাকে মেরিনার্স। ২৬ মিনিটে ওয়াকাস শরিফের গোলে ব্যবধান কমানোর পর ৫০ মিনিটে আরশাদ গোল করে দলকে সমতায় ফেরান। এর আগে ৩৫ মিনিটে মেরিনার্স একটি গোল করলেও ডিসিশন রিভিউতে তা বাতিল হয়ে যায়। ২-২ গোলের সমতা ধরে রেখে যখন খেলে যাচ্ছিল মেরিনার্স, ঊষাকে তখন একেবারেই নির্লিপ্ত দেখা গেছে। গোল কারার মরিয়া ভাবটা কারও মাঝে দেখা যায়নি। বিপরীতে খেলার একেবারে শেষ দিকে (৬৮ মিনিটে) মেরিনার্সকে এগিয়ে দেন ইশতিয়াক। তাঁর গোলেই ৩-১ গোলের জয় নিশ্চিত হয় মেরিনার্সের। ক্লাব কাপের পর লিগেও একেবারে কাছে গিয়ে শিরোপা বঞ্চিত হয় পুরান ঢাকার দল ঊষা।

১৯৭৪ সালে শুরু হওয়া হকি লিগে মেরিনার্সের এটিই প্রথম শিরোপা। উল্লেখ্য ১৯৭৪ সাল থেকে ১৯৯৭ সাল পর্যন্ত শীর্ষ হকি লিগ প্রথম বিভাগ হিসেবে গন্য হত। ১৯৯৮ সাল থেকে শুরু হয় প্রিমিয়ার হকি। প্রিমিয়ারে ২০০৬ ও ২০১০ সালে রানার্সআপ হয়েছিল মেরিনার্স। অপরদিকে এর আগের আসরে আবাহনীর সঙ্গে যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন ঊষা প্রিমিয়ারে শিরোপ জিতেছিল মোট চার বার। দুই বার একক এবং দুই বার যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন হয় তারা। সরোচ্চ পাঁচ বারের চ্যাম্পিয়ন আবাহনী (দুটি একক ও তিনটি যুগ্ম)। মোহামেডানের শিরোপ চারটি। তিন বার একক এবং একবার আবাহনীর সঙ্গে যুগ্ম।

Rent for add