অলিম্পিকে যাচ্ছেন মেসবাহ-শিরিন

Mejbah-&-Shirinশঙ্কার মেঘ দূর হলো অবশেষে। রিও ডি জেনিরো অলিম্পিকে থাকছে বাংলাদেশী স্প্রিন্টারদের অংশ গ্রহণ। ওয়াইল্ড কার্ড পেয়েছেন বাংলাদেশের দ্রুততম মানব ও মানবী মেজবাহ আহমেদ ও শিরিন আক্তার। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের একটি সূত্র।

গত ১৫ জুলাই ছিল মেজবাহ ও শিরিনের জন্য ওয়াইল্ড কার্ড পাওয়ার শেষ সময়। কিন্তু গতকাল (সোমবার) রাতে আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি (আইওসি) ওয়াইল্ড কার্ড দেওয়ার সিদ্ধান্ত জানায়। তাতেই কপাল খুলে মেজবাহ ও শিরিনের।

জাতীয় অ্যাথলেটিক্সে মেজবাহ ও শিরিন টানা দ্বিতীয়বারের মতো ১০০ মিটার স্প্রিন্টে সেরা। গত আসরে ১২.২০ সেকেন্ড সময় নিয়ে সেরা হন শিরিন; আগেরবার ১২.২৪ সেকেন্ড টাইমিং করে সোনা জিতেছিলেন তিনি। ছেলেদের ১০০ মিটারে সেরা হতে মেজবাহ সময় নেন ১০.৬০ সেকেন্ড। আগের সামার মিটে ১০.৪৩ সেকেন্ড টাইমিং করে সেরা হয়েছিলেন তিনি।

উল্লেখ্য, ১৯৮৪ সালে তখনকার দ্রততম মানব সাইদুর রহমান ডনের লস অ্যাঞ্জেলস অলিম্পিকে অংশগ্রহণের পর থেকে প্রতিবারই ওয়াইল্ড কার্ড নিয়ে সবচেয়ে বড় ক্রীড়া আসরে অংশ নিয়ে আসছে বাংলাদেশী স্প্রিন্টাররা।

মেজবাহ-শিরিন বাদে আরও পাঁচ বাংলাদেশী ক্রীড়াবিদ অংশ নেবেন এবারের অলিম্পিকে। এরা হলেন গলফার সিদ্দিকুর রহমান, সাঁতারু মাহফিজুর রহমান ও সনিয়া আক্তার, শ্যুটার আবদুল্লাহেল বাকী এবং আর্চার শ্যামলী রায়। এদের মধ্যে সিদ্দিকুর রহমান সরাসরি যায়গা করে নিয়েছেন। বাকিরা যাচ্ছেন ওয়াইল্ড কার্ড নিয়ে।

Rent for add