বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ

ব্যর্থতার রেকর্ড মোহামেডানের

BPL-Logo-2016চার ম্যাচ শেষে ঝুলিতে মাত্র ৩ পয়েন্ট। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের টেবিলে মোহামেডানের অবস্থান দশে। লিগের চতুর্থ রাউন্ড শেষে সাদাকালোদের অবস্থান ১১ তম হওয়ার আশঙ্কাও আছে। মঙ্গলবার আরামবাগের বিপক্ষে ব্রাদার্স জিতলে তারা টপকে যাবে কাজী জোসিম উদ্দিন জোসীর দলকে। আজ (রবিবার) ময়মনসিংহের রফিক উদ্দিন ভূঁইয়া স্টেডিয়ামে নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে বিজেএমসির সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে মোহামেডান। এ ড্রয়ের মধ্যে দিয়ে মোহামেডান করে ফেলেছে ব্যর্থতার নতুন এক রেকর্ড। প্রিমিয়ার লিগে আগে কখনও প্রথম ৩ ম্যাচেও জয়হীন ছিল না দেশের ঐতিহ্যবাহী দলটি। আগের ৮ আসরের ৬টিতেই জয় দিয়ে শুরু করেছিল মোহামেডান। দুটি আসরের শুরু ছিল ড্রয়ে। সপ্তম আসরে মোহামেডানকে জয় পেতে অপেক্ষা করতে হয়েছিল তৃতীয় ম্যাচ পর্যন্ত। মুক্তিযোদ্ধার বিপক্ষে ১-১ ও উত্তর বারিধারার বিপক্ষে গোলশূন্য ড্রয়ের পর তৃতীয় ম্যাচে বিজেএমসিকে ২-০ গোলে হারিয়ে জয়ে ফিরেছিল সাদাকালো শিবির। এবার জয়ের মুখ দেখলো না চতুর্থ ম্যাচ পরেও। নিজেদের ব্যর্থতার রেকর্ডটাকে আরো ভারী করলো এখন পর্যন্ত প্রিমিয়ার লিগের শিরোপার মুখ না দেখা মোহামেডান। পরের ম্যাচে মুক্তিযোদ্ধাকে হারাতে না পারলে তাদের ব্যর্থতার রেকর্ডটা আরও বড় হবে।

চলমান জেবি প্রিমিয়ার লিগে প্রথম ৩ ম্যাচের একটি হেরেছে, দুটি ড্র করেছে। সমর্থকদের প্রত্যাশা ছিল অন্তত চতুর্থ ম্যাচে জয়ের মুখ দেখবে তাদের প্রিয় দল। কিন্তু সেও আশার গুড়েও বালি। এগিয়ে গিয়েও পূর্ন পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারেনি মতিঝিলপড়ার ক্লাবটি।

msc

প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ের প্রথম মিনিটে মোহামেডানকে এগিয়ে দেন ফরোয়ার্ড তৌহিদুল আলম সবুজ। গিনির ইসমাইল বাঙ্গুরা স্কোয়াডে না থাকায় অধিনায়কের দায়িত্ব পেয়েছিলেন সবুজ। গোলটিও চমৎকার করেছিলেন তিনি। মাঝমাঠ থেকে একটি থ্রু বল ধরে বিজেএমসি ডি-বক্সে ঢুকে দূরের পোস্ট দিয়ে পাঠিয়ে দেন জালে। তার ওই গোলটি আর ধরে রাখতে পারেনি মোহামেডান। বদলি আবদুল্লাহ পারভেজের কর্নার থেকে হেডে গোল করে সমতা আনেন বিজেএমসির মোখলেসুর রহমান। এ ড্রয়ে দুই ধাপ উপরে উঠে গেলো বিজেএমসি। মোহামেডানের সমান ৩ পয়েন্ট হলেও গোল গড়ে তাদের অবস্থান ৮ এ।

Rent for add