দাবা প্রসঙ্গে ক্রীড়ামন্ত্রীকে ফিদে প্রেসিডেন্টের চিঠি

chessbd samratযুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল এমপি’কে আন্তর্জাতিক দাবা ফেডারেশনের (ফিদে) সভাপতি ও রাশিয়ার সাবেক ডেপুটি প্রাইম মিনিস্টার আরকাদি দভোরকোভিচ একটি জরুরী বার্তা পাঠিয়েছেন।

মস্কো থেকে ৮ জুন প্রেরিত ওই চিঠিতে আন্তর্জাতিক দাবা ফেডারেশনের প্যাডে তিনি উল্লেখ করেন যে কোনো সমযের চেয়ে বাংলাদেশের দাবা এখন অনেক গতিশীল এবং এর সাংগঠনিক তৎপরতা বিশেষভাবে লক্ষ্যণীয়।

বিশেষ করে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে সম্প্রতি সময়ে বাংলাদেশের দাবার এই জাগরণের পেছনে বাংলাদেশ দাবা ফেডারেশনের বর্তমান সভাপতি ড. বেনজীর আহমেদ এর বিশাল অবদানের কথা উল্লেখ করে আন্তর্জাতিক দাবা ফেডারেশনের সভাপতি আরকাদি দভোরকোভিচ বলেন, ড. বেনজীর আহমেদ সাউথ এশিয়ান চেস কাউন্সিল এর সভাপতি। তার নেতৃত্বে সাউথ এশিয়ার দাবাও গতিশীল হয়ে উঠছে। যা আন্তর্জাতিক দাবা ফেডারেশনের দৃষ্টিগোচর হয়েছে।

যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল এমপি’র কাছে পাঠানো ওই চিঠিতে আন্তর্জাতিক দাবা ফেডারেশনের সভাপতি আরকাদি দভোরকোভিচ আরো বলেন, দাবার স্বার্থে ড. বেনজীর আহমেদ’কে সাউথ এশিয়ান চেস কাউন্সিল ও বাংলাদেশের জন্য ভীষণভাবে প্রয়োজনবোধ করছে আন্তর্জাতিক দাবা ফেডারেশন।

সাউথ এশিয়ান চেস কাউন্সিল ও বাংলাদেশ দাবা ফেডারেশনের সভাপতি ড. বেনজীর আহমেদ’কে একজন সফল সংগঠক হিসেবে উল্লেখ করে আন্তর্জাতিক দাবা ফেডারেশনের সভাপতি আরকাদি দভোরকোভিচ যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল এমপি’র কাছে পাঠানো চিঠিতে আরো উল্লেখ করেছেন বাংলাদেশ দাবা ফেডারেশন একটি সক্রিয় ফেডারেশন। নবগঠিত গুরুত্বপূর্ণ দাবা সংগঠন সাউথ এশিয়ান চেস কাউন্সিলে ড. বেনজীর আহমেদ’কে প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি নির্বাচন করা হয়েছে। বাংলাদেশ তথা দক্ষিণ এশিয়ার দাবা উন্নয়নে ড. বেনজীর আহমেদ এর ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই তাকে বাংলাদেশ দাবা ফেডারেশনের সভাপতি পদের ধারাবাহিকতা বজায় রাখার ব্যাপারে অনুরোধ করেন।

উল্লেখ্য এশিয়ান সিটিজ দলগত দাবা চ্যাম্পিয়নশিপখ্যাত দুবাই কাপ, সার্ক দাবা চ্যাম্পিয়নশিপ ও এশিয়ান জোনাল দাবা ‌চ্যাম্পিয়নশিপের মতো প্রেস্টিজিয়াস আসরের আয়োজন করে বাংলাদেশ দাবা ফেডারেশনের সভাপতি ড. বেনজীর আহমেদ আন্তর্জাতিকভাবে প্রশংসিত হয়েছেন। শুধু তাই নয়, বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো ফিদে ট্রেইনার্স সেমিনার ও ফিদে আরবিটার্স ট্রেনিং এর আয়োজন করেও সাংগঠনিক দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন। এমন কী তিনি সভাপতির দায়িত্ব নেবার পর থেকে জাতীয় পর্যায়ে নতুনত্ব এসেছে। দেশের বড় বড় প্রতিষ্ঠান দাবায় পৃষ্ঠপোষকতায় এগিয়ে এসেছে। শুধু কী তাই! প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের এই সময়েও তিনি দু:স্থ, অস্বচ্ছল দাবাড়ু, সংগঠক, কোচ ও আরবিটারদের আর্থিক সহায়তা দিয়েছেন।

এমন কী বাংলাদেশ দাবা ফেডারেশনের সভাপতি ড. বেনজীর আহমেদ জাতিরপিতা শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষেও বেশকিছু বড় মাপের গ্র্যান্ডমাস্টার্স টুর্নামেন্টের উদ্যোগ নিয়েছেন। যেখানে বিশ্বসেরা দাবাড়ুদের আনার চেষ্টা করছেন। কাজেই সাউথ এশিয়ান ও বাংলাদেশের দাবার স্বার্থেই ড. বেনজীর আহমেদ’কে ভীষণ প্রয়োজন।

Rent for add