শ্রীলঙ্কায় স্বল্পকালীন কোয়ারেন্টাইন চায় বিসিবি

তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজের আগে অনুশীলনে পর্যাপ্ত সময় পাওয়ার লক্ষে আসন্ন শ্রীলঙ্কা সফরে ১৪ দিনের কম কোয়ারেন্টাইন পর্ব চায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

কোভিড-১৯ পরিস্থিতির কারণে বিসিবি সাত দিনের বাধ্যতামূলক আইসোলেশন চায়, তবে শ্রীলঙ্কা এখনো কোন কিছুই জানায়নি।

বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘আমরা চাই কোয়ারেন্টাইন সময় যতটা সম্ভব সংক্ষিপ্ত করা যায়। সাত দিনের কোয়ারেন্টাইন নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তবে এখনো এটি চূড়ান্ত হয়নি।’

তিনি আরও বলেন, ‘তবে বিষয়টি শ্রীলঙ্কা বোর্ডের উপর নির্ভর করবে না। তাদের সরকার যা বলবে, তাই করবে। আমি যতটুকু জানি, এ বিষয়ে সরকারের সাথে তারা কথা বলবে যা আমাদের পরে জানানো হবে।’

করোনাভাইরাসের কারণে গেল মার্চ থেকে বাংলাদেশের ক্রিকেট কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। তবে গত ১৯ জুলাই থেকে সীমিত আকারে পুনরায় ক্রিকেট কার্যক্রম শুরু হয়। বিসিবি’র আয়োজিত জৈব-সুরক্ষা পরিবেশে ব্যক্তিগতভাবে অনুশীলন শুরু করে ক্রিকেটাররা। বাসস

কিছুদিন আগে বিসিবি ছোট-ছোট গ্রুপে অনুশীলন শুরু করে, তবে সতর্কতা হিসেবে এখনো পুর্ণাঙ্গ অরুশীলন শুরু হয়নি। শ্রীলঙ্কা সফরের আগে দেশের মাটিতে ছোট আকারে কন্ডিশনিং ক্যাম্প করবে বাংলাদেশ। তবে বাংলাদেশের মূল অনুশীলন পর্ব অনুষ্ঠিত হবে শ্রীলঙ্কার মাটিতে ।

আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর লঙ্কার উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়বে টাইগাররা। ফলে ২৪ অক্টোবর থেকে প্রথম টেস্ট শুরুর আগে প্রায় এক মাস সময় পাবে বাংলাদেশ দল। তবে উদ্বেগের বিষয়, ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকলে, টেস্ট সিরিজের আগে অনুশীলনের জন্য পর্যাপ্ত সময় পাবে না বাংলাদেশ।

প্রধান নির্বাহী আরও বলেন, ‘অনুশীলনের জন্য পর্যাপ্ত সময় পেতে আমরা কোয়ারেন্টাইন পর্ব সংক্ষিপ্ত করতে অনুরোধ করেছি। কারণ আমাদের মূল অনুশীলন ক্যাম্প শ্রীলঙ্কায় হবে। একই সময়ে লঙ্কা সফরে থাকা আমাদের এইচপি দলের সাথে কিছু ম্যাচ খেলবো। যারা একই সময় শ্রীলঙ্কা সফর করবে।’

শ্রীলঙ্কা সফরের আগে তিনবার করোনা পরীক্ষা হবে বাংলাদেশ ও এইচপি দলের। শ্রীলঙ্কায় পৌঁছানোর পর তাদের আবারো করোনা পরীক্ষা করা হবে।