for Add

মেসি-নেইমারে রোমাঞ্চকর জয়

messi-neymarনিজস্ব প্রতিবেদক: এটাকেই বলে প্রকৃত ফুটবলীয় রোমাঞ্চ। একবার পিছিয়ে পড়া তো, আরেকবার সমতায় আসা। এভাবে দু’বার পিছিয়ে পড়ার পর অবশেষে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ার অম্ল-মধুর অভিজ্ঞতাই হয়েছে বার্সেলোনা সমর্থকদের। রোববার রাতে ন্যু ক্যাম্পে চমৎকার এক রোমাঞ্চকর ম্যাচে ভিলারিলেকে ৩-২ গোলে হারিয়েছে বার্সেলোনা।

চারমিনিটেই হলো তিন গোল! গোল আর পাল্টা গোলের খেলা এভাবেই জমে ওঠেছিল ন্যু ক্যাম্পে। নিজেদের মাঠে খেললেও বার্সার জন্য কোনভাবেই সহজ ছিল না ম্যাচটি।

ভিলারিয়াল পয়েন্ট টেবিলের ছয় নম্বর দল। একই সঙ্গে লীগে টানা ১০ ম্যাচ অপরাজিত থেকেই ন্যু ক্যাম্পে খেলতে এসেছিল তারা। এর ধারাবাহিকতার প্রমান রেখেছিল তারা। বার্সার মুহূর্মুহূ আক্রমনের সামনে অনেকটা স্রোতের বিপরীতেই ৩০ মিনিটে বার্সার জালে বল জড়িয়ে দেয় ভিলারিয়াল। সফরকারীদের এগিয়ে দেন চেরি শেভ।

আবার প্রথমার্ধ শেষ হওয়ার একদম শেষ মুহূর্তে গোলটি শোধ করেন বার্সার ব্রাজিলিয়ান তারকা নেইমার। ১-১ সমতায় থেকে শেষ হয় প্রথমার্ধ।

ম্যাচের আসল নাটক জমে ওঠে ৫১ থেকে ৫৩ এই চার মিনিটে। ৫১ মিনিটে দুর্দান্ত এক পাল্টা আক্রমণ থেকে ভিলারিয়ালকে আবারও এগিয়ে দেন ভিয়েতো। দুই মিনিটের মধ্যেই ২-২ করে ফেলেন রাফিনহা। সুয়ারেজের ক্রসে হেড করেছিলেন মেসি। কিন্তু সে হেড ঠেকিয়ে দেন ভিলারিয়ালের ডিফেন্ডার। ফিরতি শটে জালে বল জড়ান রাফিনহা।

উজ্জিবীত বার্সেলোনা ৫৫ মিনিটে পেয়ে যায় আরেক গোল। এতক্ষণ পাশ্ব নায়ক হয়ে থাকা মেসি এবার সবার দৃষ্টি কেড়ে নেন বক্সের প্রান্ত থেকে ডান পায়ে দুর্দান্ত এক শটে গোল করে।

এ নিয়ে সব প্রতিযোগিতা মিলে টানা আট ম্যাচ জিতলো বার্সেলোনা। করলো ২৯ গোল। দুর্দান্ত গতিতেই ছুটছে লুইস এনরিকের দল।

for Add