আফগানদের বিধ্বস্ত করে শুরু বাংলাদেশের

206159.3-(1)নিজস্ব প্রতিবেদক: বাঘের গর্জন ক্যাঙ্গারুর দেশেও। সেই গর্জনে উড়ে গেল বিশ্বকাপে নবাগত আফগানিস্তান। বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই আফগানদের ১০৫ রানে হারিয়ে শুভ সূচনা করলো বাংলাদেশ। ম্যাচ সেরার পুরস্কার জিতলেন মুশফিকুর রহিম।

বাংলাদেশের করা ২৬৭ রানের জবাবে খেলতে নেমে প্রথম থেকেই কঠিন ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে আফগানিস্তান। ৩ রানেই হারায় ৩ উইকেট। এরপর ছোট ছোট দু’একটি জুটি গড়ে আফগানরা চেষ্টা করেছে বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই জয় তুলে নিতে। শেষ পর্যন্ত পারেনি মোহাম্মদ নবিরা। থেমে যেতে হয়েছে ৪২.৫ ওভারে ১৬২ রানেই।

অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা তুলে নেন ২০ রানে ৩ উইকেট। সাকিব আল হাসান ৪৩ রানে তোলেন ২ উইকেট। রবেল, মাহমুদুল্লাহ এবং তাসকিন নেন ১টি করে উইকেট।
প্রথম ওভারের শেষ বলেই আফগান ওপেনার জাভেদ আহমাদির উইকেট তুলে নেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। মাশরাফির শট লেন্থের বলটি অন সাইডে খেলতে গিয়েছিলেন জাভেদ। কিন্তু ব্যাটের কানায় লেগে বল উঠে যায় বোলারস ব্যাকড্রাইভ। ক্যাচটি তালুবন্ধী করতে মোটেও কষ্ট করতে হয়নি মাশরাফির।

নিজের প্রথম ওভারে এবং দলীয় দ্বিতীয় ওভারের প্রথম বলেই আফগানদের দ্বিতীয় উইকেটের পতন। রুবেলের শট লেন্থের বলটি অফস্ট্যাম্প বরাবর আসছিল। রক্ষণাত্মক খেলতে গিয়ে পায়ে লাগান আফসার জাজাই। আম্পায়ার স্টিভ ডেভিস আঙ্গুল তুলে দেন এলবিডব্লিউ আউটের। দুই ব্যাটসম্যান আলাপ করে রিভিউ চান। কিন্তু রিভিউর ফল গেলো ব্যাটসম্যানের পক্ষেই। ফলে দুর্দান্ত সূচনা ঘটলো বাংলাদেশের।

তৃতীয় ওভারের শেষ বলে আবারও উইকেট। এবারও বোলার অধিনায়ক মাশরাফি। ব্যাটসম্যান আসগার স্টানিকজাই অনেকটা নার্ভাস। ওয়াইড লেন্থের বল খেলতে গিয়ে ব্যাটের কোনায় লাগান। ক্যাচ উথে যায় স্লিপে দাঁড়ানো মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের হাতে। রিয়াদ ক্যাচটি তালুবন্দী করতেই বাংলাদেশের জন্য আরেকটি ব্রেক থ্রু। ৩ রানে আফগানদের গেল তিন উইকেট।

তবে চতুর্থ উইকেটে ৬২ রানের জুটি গড়ে নওরোজ মোগল আর সামিউল্লাহ সেনওয়ারি চেষ্টা করেন আফগানদের টেনে তুলতে। শেষ পর্যন্ত মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের বলে তুলে মারতে গিয়ে বাউন্ডারি লাইনে রুবেলের দুর্দান্ত ক্যাচের শিকার হন নওরোজ। ২৭ রান করে ফিরে গেলেন তিনি।

পঞ্চম উইকেটের পতন ঘটাতে খুব বেশি অপেক্ষা করতে হলো না মাশরাফিদের। উইকেটে সেট হয়ে যাওয়া সামিউল্লাহ সেনওয়ারিকে রানআউট করে ফিরিয়ে দিলেন সাব্বির রহমান আর মুশফিক। ৭৫ বলে ৪২ রান করা সামিউল্লাহ ২৬তম ওভারের চতুর্থ বল থেকে দ্রুত দ্বিতীয় রান নিতে যান। সাব্বির রহমানের সরাসরি থ্রো ধরেই স্ট্যাম্প ভেঙে দেন মুশফিক। ৭৮ রানে গেলো পঞ্চম উইকেট।

এরপর আর বাংলাদেশের বোলারদের হতাশ হতে হয়নি। ৪২.৫ ওভারেই সবগুলো উইকেট তুলে নিয়ে আফগানদের বিধ্বস্ত করে চাড়ল মাশরাফি অ্যান্ড কোং।