for Add

আর মামলা চালাবেন না হ্যাপি

rubelনিজস্ব প্রতিবেদক: চিত্র নায়িকা নাজনীন আকতার হ্যাপির করা ধর্ষণ মামলা থেকে অবশেষে মুক্তি পেলো বাংলাদেশের পেসার রুবেল হোসেন। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে স্মরণীয় জয়ে রুবেল হোসেনের অসামান্য অবদানের পর যখন পুরো বাংলাদেশ এখনও উৎসবে মাতোয়ারা, তখন হ্যাপিও যোগ দিলেন সেই উৎসবে। আদালত থেকে ধর্ষণ এবং প্রতারণার মামলা প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

অথ্যাৎ, অস্ট্রেলিয়া থেকে ফিরে আর মামলার মুখোমুখি হতে হবে না রুবেলকে। বেসরকার টিভি চ্যানেল ২৪কে এমনটিই জানিয়েছেন হ্যাপী।

বিশ্বকাপের আগে থেকেই রুবেল-হ্যাপি বিষয় ছিল হটকেক। ধর্ষণের মামলায় রুবেল দু’দিন হাজতেও ছিলেন। তবে বিশ্বকাপ উপলক্ষে উচ্চ আদালত থেকে জামিন পেয়ে রুবেল খেলতে চলে যান অস্ট্রেলিয়ায়।

সোমবার ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ ১৫ রানে দারুণ এক জয়ে স্বপ্নের স্বপ্নের কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছে যায় মাশরাফি বাহিনি। গুরুত্বপূর্ণ সময়ে তুলে নেন চারটি উইকেট তুলে নিয়ে শেষের নায়কে পরিণত হন রুবেলেই। তার এমন সাফল্যে খুশি পুরো দেশ। যে কারণে পুরোনো অভিমান ভেঙে রুবেলকে ক্ষমাও করে দিলেন তার সাবেক প্রেমিকা হ্যাপি।

এক সাক্ষাৎকারে হ্যাপী বলেন, ‘আমি তাকে (রুবেল) ক্ষমা করে দিয়েছি। তার বিরুদ্ধে করা মামলা আমি আর চালাবো না। কোনো স্বাক্ষ্য-প্রমাণ হাজির করার চেষ্টাও করবো না।’

এদিকে দলের জয়ে রুবেলের বিপক্ষে হ্যাপির করা মামলার আইনজীবী কুমার দেবুল দেও আর সেই মামলা চালাবেন না বলে ঘোষণা দিয়েছেন।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশের জয়ের পরই ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসে দেবুল দে লিখেন,‘বাংলাদেশের ক্রিকেট সমর্থকদের জ্ঞাতার্থে জানাচ্ছি যে, একজন পেশাজীবী হিসাবে হ্যাপির পক্ষে মামলা পরিচালনার দায়িত্ব নিয়েছিলাম। বাংলাদেশের এহেন সফলতায় রুবেলের বিপক্ষে মামলায় লড়ার আমার আর ইচ্ছে নেই এবং তাই হ্যাপির আইনজীবী হিসাবে এখুনি নিজের নাম প্রত্যাহার করে নিলাম।’

তিনি আরো লিখেন, ‘এখন থেকে আমি আর হ্যাপীর আইনজীবী নই। শুভেচ্ছা বাংলাদেশ ক্রিকেট দল!!!! বাংলাদেশ দল ভালো খেলছে। ভালো খেলুক। রুবেল চাপমুক্ত থাকুক। তাকে চাপমুক্ত রাখতেই আমার এ সিদ্ধান্ত।’

for Add