for Add

চার রানে জিতল দিল্লি

দিল্লি ডেয়ারডেভিলস: ১৬৭/৪ (শ্রেয়স ৬০, ডুমিনি ৫৪)। সানরাইর্জাস হায়দরাবাদ: ১৬৩/৮ (বোপারা ৪১, ডুমিনি ৪/১৭)। ফল: দিল্লি চার রানে জয়ী। ম্যাচ সেরা: জেপি ডুমিনি।

211037.3নিজস্ব প্রতিবেদক: মায়াঙ্ক আগরওয়ালের দুরন্ত হাত বাঁচিয়ে দিল দিল্লিকে। শেষ ওভাররে পঞ্চম ডেলিভারি নিশ্চিত ছক্কা বাঁিচয়ে দিল্লি ডেয়ারডেভিলসকে অপ্রত্যাশিত জয় এনে দিলেন কর্নাটকের ২৪বছরের ব্যাটসম্যান। মায়াঙ্কের ‘দুরন্ত হাত’ই হায়দরাবাদকে চার রানে হারিয়ে আইপিএল এইটের দ্বিতীয় জয় এনে দিল ডেয়ারডেভিলসকে।

১৬৭ রান তাড়া করতে নেমে ১৬৩ রানে থেমে যেতে হয় হায়দরাবাদকে। রবি বোপারার ৪১ ও অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নারের ২৮ রান জয়ের জন্য যথেষ্ট ছিল না। ১৮ রান করে ডাগ-আউটে ফেরেন শিখর ধাওয়ান। তিন ওভারে মাত্র ১৭ রানে চার উইকেট নিয়ে ডুমিনি হন জয়ের আসল নায়ক।

এর আগে ব্যাট করতে নেমে হায়দরাবাদের সামনে ১৬৮ রানের টার্গেট দেয় দিল্লি ডেয়ারডেভিলস। টস জিতে প্রথম ব্যাট করে চার উইকেটে ১৬৭ রান তোলে ডেয়ারডেভিলস। আজ রান পাননি যুবরাজ সিং। ১৩ বল খেলে মাত্র ৯ রানে ডাগ-আউটে ফেরেন ১৬ কোটির যুবি।

যুবরাজ ব্যর্থ হলেও শ্রেয়স আয়ার ও অধিনায়ক জেপি ডুমিনির হাফ সেঞ্চুরির দৌলতে দেড়শোর গণ্ডি টপকায় দিল্লি। ৪০ বলে পাঁচটি ছক্কা ও তিনটি বাউন্ডারির সাহায্যে ৬০ রান করেন আয়ার। অধিনায়ক ডুমিনি করেন ৪১ বলে ৫৪ রান। এদিন মাঠে ফিরেই দুরন্ত ডেল স্টেইন। আইপিএল এইটে প্রথম ম্যাচ খেলন প্রোটিয়া পেসার। ট্রেন্ট বোল্টের পরিবর্তে মাঠে নেমে চার ওভারে মাত্র ২৭ রান দিয়ে এক উইকেট তুলে নেন স্টেইন।

for Add