চলে গেলেন কাজী জাহেদা আলী

kazi zaheda ali khanজাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত ক্রীড়াবিদ কাজী জাহেদা আলী খান আর নেই। সবাইকে শোকের সাগরে ভাসিয়ে চলে গেলেন না ফেরার দেশে। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৭ বছর। তিনি তিন মেয়ে এবং এক ছেলে রেখে গেছেন।

পঞ্চাশ/ষাট দশকের মাঠ কাঁপানো অ্যাথলেট কাজী জাহেদা আলী খান ছিলেন দেশবরেণ্য ক্রীড়াবিদ ও ক্রীড়া সংগঠক কাজী আবদুল আলীমের ছোট বোন।ওনার তিন বোনই জাতীয় পর্যায়ের অ্যাথলেট ছিলেন। এর মধ্যে কাজী নাসিমা হামিদ ছিলেন ১৯৯৬ সালের জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত ক্রীড়াবিদ। অপর বোন কাজী শামীমা ছিলেন জাতীয় অ্যাথলেট।

কাজী জাহেদা আলী খান বেশ কিছু দিন ধরে ডায়াবেটিক ও কিডনি সংক্রান্ত জটিলতায় ভুগছিলেন।বৃহস্পতিবার (৩০ এপ্রিল) দুপুর ১২টায় তিনি ইউনাইটেড হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। মরহুমাকে বনানীর সেনাবাহিনী কবরস্থানে দাফন করা হয়।

আজ থেকে ঠিক দুই বছর আগে রমজান মাসের তৃতীয় দিনে কাজী জাহেদা আলী খানের স্বামী মৃত্যুবরণ করেছিলেন। আর তিনি দুই বছর পর ৬ রমজানে চলে গেলেন না ফেরার দেশে।

১৯৭৯ সালে কাজী জাহেদা আলী খান জাতীয় পুরস্কার লাভ করেন। তিনি অবসর নেবার পর সংগঠক হিসেবেও কাজ করেছেন। তিনি বাংলাদেশ অ্যাথলেটিকস ফেডারেশন, বাংলাদেশ মহিলা ক্রীড়া সংস্থা ছাড়াও বেশ কিছু সংগঠনের কার্যনির্বাহী পরিষদে কাজ করেছেন।

তার মৃত্যুতে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল এমপি, বাংলাদেশ অ্যাথলেটিকস ফেডারেশনের সভাপতি এএসএম আলী কবীর ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুর রকিব মন্টু গভীর শোক প্রকাশ করেছেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান।