আজ থেকে মুক্ত সাকিব আল হাসান

সব ধরনের ক্রিকেট থেকে সাকিব আল হাসানের নিষেধাজ্ঞা আজ থেকে উঠে যাচ্ছে। ফলে ক্রিকেটের যে কোনো ফরম্যাটে ফিরতেই তার আর কোনো বাঁধা থাকছে না।

আজ থেকে ক্রিকেট খেলতে ও ক্রিকেটীয় যে কোনো কার্যক্রমে অংশ নিতে পারবেন সাকিব। ধারণা করা হচ্ছে আগামী নভেম্বরে একটি টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের মধ্য দিয়েই তিনি ফের ক্রিকেটে ফিরতে যাচ্ছেন।

এক বছর আগে বাংলাদেশের সাবেক অধিনায়ক সাকিবকে নিষিদ্ধ করেছিল ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। এরমধ্যে এক বছরের নিষেধাজ্ঞা স্থগিত করেছিল আইসিসি।

গেল বছর আইসিসি দুর্নীতি দমনের তিনটি নিয়ম ভঙ্গের অভিযোগ স্বীকার করার পর তাকে নিষিদ্ধ করা হয়। আচরণ বিধি ভাঙ্গার অভিযোগ মেনে নেন সাকিব এবং দুর্নীতি দমন ট্রাইব্যুনালের শুনানির পরিবর্তে আইসিসির শাস্তিতে সম্মতি জ্ঞাপন করেন।

নিষেধাজ্ঞা পাবার পর আইসিসির দেয়া সব ধরনের শর্ত পূরণ করায়, আজ থেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পুনরায় শুরু করতে পারবেন সাকিব।

ক্রিকেটে ফিরতে মুখিয়ে আছেন সাকিব, এমনটা জানিয়েছেন বাংলাদেশের প্রধান কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো। তবে মাঠে ফেরার পর সাকিবের কাছ থেকে আহামরি কিছু আশা না করার আহ্বান করেছেন তিনি।

ছুটিতে দক্ষিণ আফ্রিকায় যাবার আগে সাকিবকে নিয়ে ডোমিঙ্গো বলেন, ‘আমি তার সাথে কথা বলেছি। সে তার ফিটনেস নিয়ে কঠোর পরিশ্রম করছে। সে এখন দেশের বাইরে রয়েছে। ফিট হতে তার কিছুটা সময়ের প্রয়োজন হবে এবং আত্মবিশ্বাস ফিরে পাবে। আমরা জানি, সে বড় মাপের খেলোয়াড়। তাই আমি আশা করছি, বাংলাদেশের হয়ে ২০২১ মৌসুমটি দুর্দান্ত হবে সাকিবের।’

সেরা অলরাউন্ডারকে ড্রেসিংরুমে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন সাকিব সতীর্থরা। মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ বলেন, ‘আমরা জানি অনেক বছর ধরেই বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সেরা খেলোয়াড় সাকিব। আমরা সকলেই অধীর আগ্রহে ড্রেসিংরুমে তার ফিরে আসার অপেক্ষায় আছি।

নিষিদ্ধ থাকা অবস্থায় ভারত সফর মিস করেন সাকিব। ঐ সফরে দু’টি টেস্ট ও তিন ম্যাচের টি-টুয়েন্টি সিরিজ ছিল। এছাড়াও বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ, পাকিস্তানের বিপক্ষে দু’টি টি-টোয়েন্টি ও একটি টেস্ট এবং দেশের মাটিতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিনটি ওয়ানডে, দু’টি টি-টোয়েন্টি ও একটি টেস্ট ম্যাচ মিস করেন সাকিব।